ঢাকা শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪ 

জামালপুর থেকে ঢাকার বাস ভাড়া কমেছে ৫ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১২:০৮, ২ এপ্রিল ২০২৪

শেয়ার

জামালপুর থেকে ঢাকার বাস ভাড়া কমেছে ৫ টাকা

ডিজেলের দাম কমার পর ডিজেলচালিত বাস ও মিনিবাসের পরিচালন ব্যয় বিশ্লেষণ করে কিলোমিটার প্রতি তিন পয়সা ভাড়া কমিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। সেই হিসেবে ঢাকা থেকে জামালপুরের রুটে বাস ভাড়া কমেছে ৫ টাকা ২৪ পয়সা।

সোমবার (১ এপ্রিল) রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপসচিব মো. মনিরুল আলম ওই প্রজ্ঞাপনে স্বাক্ষর করেন।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার রুটে চলাচলকারী বাস ও মিনিবাসের ক্ষেত্রে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ প্রতি কিলোমিটারে সর্বোচ্চ ভাড়া ২ টাকা ১৫ পয়সার জায়গায় ২ টাকা ১২ পয়সা নির্ধারণ করেছে।

জামালপুর বাস টার্মিনালের তথ্য অনুযায়ী, ঢাকা মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে জামালপুর বাস টার্মিনালের দূরত্ব ১৭৬ কিলোমিটার। প্রতি কিলোমিটার ২ টাকা ১৫ পয়সা ভাড়ায় তখন ছিল ৩৭৮ টাকা ৪ পয়সা। নতুন প্রজ্ঞাপনের ৩ পয়সা কমিয়ে সেই ভাড়া দাঁড়িয়েছে ৩৭৩ টাকা ১২ পয়সা। সেই হিসেবে জামালপুর থেকে ঢাকার ভাড়া কমছে ৫ টাকা ২৮ পয়সা।

জামালপুরের সাধারণ বাসযাত্রীরা বলেছেন, সরকারি হিসেবে প্রতি কিলোমিটার অনুযায়ী ভাড়া নেওয়া হয় না। যাত্রীদের কাছ থেকে যে যেভাবে পারে ভাড়া নেয়। বাসের সুপারভাইজার তাদের ইচ্ছামতো ভাড়া নিয়ে থাকেন। প্রতি কিলোমিটার অনুযায়ী বেশি টাকা নেন তারা।

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাঈদ আহাম্মেদ বলেন, জামালপুর থেকে ঢাকার ভালো কোনো বাস নেই, সবগুলাই লোকাল বাস। তাদের ভাড়া নির্ধারিত না। জামালপুর থেকে ভালো মানের বাস সার্ভিস চালু করা জরুরি। এখন যেসব বাস আছে তাদের যাত্রার মান একবারেই খারাপ। একটু পর পর থামবে, যাত্রী উঠাবে এবং নামাবে।

বাসচালক শামীম মিয়া বলেন, কাউন্টার থেকে নির্ধারিত ভাড়ায় যাত্রী ওঠানো হয়, তবে সবাই তো আর ঢাকা যায় গাজীপুর, সাভার, বাইপেল, আশুলিয়া এসব এলাকায় অনেক যাত্রী থাকলে তাদের ভাড়া ভিন্নরকম আর হয়। এক একজন যাত্রী একেক জায়গায় নামে তারা তো আর সমান ভাড়া দিবে না।

জামালপুর বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, প্রতি কিলোমিটারে ৩ পয়সা কমিয়েছে এটা আমি এখনো জানি না। সরকার প্রতি কিলোমিটারে যে নির্ধারিত ভাড়া ধরবে সেই ভাড়াই নেওয়া হবে। জামালপুর থেকে দেশের বিভিন্ন জেলায় বাস চলাচল করে থাকে। কাউন্টার থেকে নির্ধারিত মূল্যে টিকিট দেওয়া হয়।

এদিকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের জারি করা প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, বিআরটিএ অনুমোদিত আসন সংখ্যা কমিয়ে বাস বা মিনিবাসের আসন সংখ্যা পুনর্বিন্যাস করা হলে অনুচ্ছেদ-ক অনুযায়ী নির্ধারিত ভাড়া আনুপাতিকভাবে পুনরায় নির্ধারিত করতে হবে। সেক্ষেত্রে রুট পারমিট অনুমোদনকারী কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)/যাত্রী ও পণ্য পরিবহন কমিটি থেকে আনুপাতিকভাবে ভাড়ার হার অনুমোদন করিয়ে নিতে হবে।

এ ভাড়ার হার গ্যাস চালিত বাস বা মিনিবাসের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। ডিজেলচালিত বাস ও মিনিবাসের ভাড়া নির্ধারণ সংক্রান্ত ইতোপূর্বে জারি করা সব প্রজ্ঞাপন ও আদেশ এতদ্দ্বারা রহিত করা হলো। এ ভাড়ার হার প্রতিটি বাস ও মিনিবাসের দৃশ্যমান স্থানে আবশ্যিকভাবে টানিয়ে রাখতে হবে।

novelonlite28
umchltd