ঢাকা বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪ 

ভারতীয় সেনাদের সরাতে মোদির প্রস্তাবে সম্মত পুতিন

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:৫৩, ৯ জুলাই ২০২৪

শেয়ার

ভারতীয় সেনাদের সরাতে মোদির প্রস্তাবে সম্মত পুতিন

দুদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে মস্কো রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সফরের প্রথম দিন ইউক্রেন যুদ্ধের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে। 

প্রধানমন্ত্রী মোদি জানান, রাশিয়ায় যে ভারতীয়রা আছেন, বাধ্য হয়েই তাদের অনেককে যুদ্ধে অংশ নিতে হয়েছে। পুতিন যেন যুদ্ধ থেকে ভারতীয়দের অব্যাহতি দেন সেই অনুরোধও জানান মোদি। 

সূত্রের দাবি, পুতিন মোদির কথায় সাড়া দিয়েছেন। ভারতীয়দের রুশ সেনাবাহিনী থেকে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তারা যাতে দেশে ফিরে যেতে পারেন, সেই ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট। মঙ্গলবার এনডিটিভির প্রতিবেদনে উঠে আসে এই তথ্য। 

সফরের প্রথম দিন সোমবার রাতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে নৈশভোজে অংশ নেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এ সময় ইউক্রেন যুদ্ধের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয় তাদের মধ্যে। এ সময় ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানান মোদি। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুদ্ধক্ষেত্রে কোনো সমাধান খুঁজে পাওয়া যাবে না। ভারত জাতিসংঘ সনদ, আঞ্চলিক অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্বকে সম্মান জানায়। যুদ্ধক্ষেত্রে কোনো কিছুর সমাধান নেই। আলোচনা ও কুটনীতিই সমস্যা সমাধানে এগিয়ে যাওয়ার পথ। 

এ সময় অসাধু ট্রাভেল এজেন্টদের মাধ্যমে প্রতারিত হয়ে ভারতীয় নাগরিকদের রাশিয়ার সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন মোদি। ২০২২ সালে ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রাশিয়া। এর পর থেকে টানা সেই যুদ্ধ চলছে। 

কর্মসূত্রে বহু ভারতীয় রাশিয়ায় বসবাস করেন। মোদির অভিযোগ, এমন বহু ভারতীয়কে বাধ্য হয়ে রাশিয়ার সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে হয়েছে। যুদ্ধে কয়েকজন ভারতীয়র নিহত হওয়ার খবরও প্রতিবেদনে প্রকাশিত হয়েছে। 

এদিকে, ইউক্রেন যুদ্ধ কেন্দ্র করে রাশিয়ার সঙ্গে পশ্চিমা দেশগুলোর তীব্র উত্তেজনার মধ্যেই মোদির এই সফরকে বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। মোদির এই সফরকে ভালো চোখে দেখছে না যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্ব। 

ইতোমধ্যেই পুতিন ও মোদির বৈঠক নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই বৈঠককে তিনি ‘বিশাল হতাশা’ বলে উল্লেখ করেছেন। জেলেনস্কি লিখেছেন, বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের নেতাকে মস্কোতে বিশ্বের সবচেয়ে রক্তপিপাসু অপরাধীর সঙ্গে আলিঙ্গন করতে দেখা শান্তি প্রচেষ্টার জন্য একটি বিধ্বংসী আঘাত।

 

 

novelonlite28
umchltd